অবশেষে বাইডেনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে সম্মতি ট্রাম্পের

trump baiden

অবশেষে নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে সম্মত হয়েছেন দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সোমবার বাইডেন শিবিরের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরুর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুমতি দিয়েছেন তিনি। কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্রে বিদায়ী ও আসন্ন প্রশাসনের মধ্যে সমন্বয়ের কাজটি করে থাকে জেনারেল সার্ভিসেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিএসএ)। তারাই পুরনো প্রশাসনের কাছ থেকে নুতন প্রশাসনকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়ার কাজটি করে থাকে। নির্বাচনে নিজের পরাজয়ের বিষয়ে চ্যালেঞ্জ অব্যাহত রাখার কথা বললেও ট্রাম্প জানিয়েছেন, জিএসএ-এর কাজে তিনি প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে চান না। তিনি বলেছেন, জেনারেল সার্ভিসেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিএসএ)-এর যেটি করণীয় তারা সেটিই করবে।

জেনারেল সার্ভিসেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিএসএ) জানিয়েছে, তারা বাইডেনকে ‘আপাত বিজয়ী’ হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে।

মিশিগানে বাইডেনের জয় আনুষ্ঠানিকভাবে সার্টিফায়েড হওয়া ছিল ট্রাম্প শিবিরের জন্য একটি বড় ধাক্কা। মূলত এরপরই বাইডেনকে ‘আপাত বিজয়ী’ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা জানায় জিএসএ। সে অনুযায়ী, আগামী ২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনের অভিষেকের বিষয়ে প্রস্তুতি শুরু করেছে তারা। জিএসএ-র এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে বাইডেন টিম।

বাইডেন টিমের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জিএসএ-এর এ সিদ্ধান্ত একটি চূড়ান্ত প্রশাসনিক পদক্ষেপ। আমাদের জাতির সামনে যেসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে সেগুলো মোকাবিলার জন্য আজকের সিদ্ধান্তটি একটি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। মহামারি নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং আমাদের অর্থনীতিকে ট্র্যাকে ফিরিয়ে আনার মতো চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় এর প্রয়োজন ছিল।

এর আগে ক্ষমতায় টিকে থাকতে বিভিন্ন রাজ্যে ট্রাম্প শিবিরের মামলার সমালোচনা করেন বাইডেন। তিনি বলেন, ট্রাম্পের আইনি ব্যবস্থার হুমকিতে কিছুই থেমে থাকবে না। কোনও কিছুই ক্ষমতা হস্তান্তরকে আটকে রাখতে পারবে না। যাই ঘটুক না কেন, ২০ জানুয়ারি নতুন সরকার গঠনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে কাদের দায়িত্ব দেওয়া হবে; সে ব্যাপারে এরইমধ্যে পর্যালোচনা শুরু হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ট্রাম্পের নির্বাচনের ফল মেনে না নেওয়া বিব্রতকর।

জিএসএ কখন সরকার বদলের এ প্রক্রিয়া শুরু করবে সে ব্যাপারে আইনে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা নেই। তবে বাইডেন শিবির বলছে, তাদের বিজয় পরিষ্কার। ফলে এখানে বিলম্ব বা কালক্ষেপণ করার কোনও সুযোগ নেই।

রয়টার্স/ইসপোস পরিচালিত জরিপে দেখা গেছে, ট্রাম্প নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ তুললেও যুক্তরাষ্ট্রের বেশিরভাগ মানুষ এটি বিশ্বাস করে না। জরিপে অংশগ্রহণকারীদের প্রায় ৮০ ভাগই বাইডেনকে পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নিয়েছেন। এই ৮০ ভাগের মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টির সমর্থক। সূত্র: বিবিসি, আল জাজিরা।