মিয়ানমারে পাঁচ সংবাদমাধ্যমের লাইসেন্স বাতিল

mayanmar

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী আন্দোলনের খবর প্রচারের কারণে দেশটির পাঁচটি সংবাদমাধ্যমের লাইসেন্স বাতিল করেছে জান্তা সরকার
মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী আন্দোলনের খবর প্রচারের কারণে দেশটির পাঁচটি সংবাদমাধ্যমের লাইসেন্স বাতিল করেছে জান্তা সরকার।

পাঁচ গণমাধ্যম হলো- মিজিমা, ডেমোক্রেটিক ভয়েস অব বার্মা (ডিভিবি), খিত থিত মিডিয়া, মিয়ানমার নাও এবং সেভেনডে নিউজ। দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত এমআরটিভির এক ঘোষণায় এই পাঁচ সংবাদমাধ্যম বন্ধের কথা জানানো হয়।

ঘোষণায় বলা হয়, ‘কোনো ধরনের মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম বা প্রযুক্তি ব্যবহার করে এই পাঁচটি প্রতিষ্ঠানের কোনো কিছু সম্প্রচারের, লেখার বা কোনো তথ্য জানানোর অনুমতি নেই আর।’
গত কয়েক সপ্তাহে অভ্যুত্থানবিরোধী আন্দোলনের ব্যাপক সম্প্রচার চালায় এ পাঁচটি সংবাদমাধ্যম। দেশটিতে বিগত কয়েক সপ্তাহে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করে নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছেন। আন্দোলনকারীদের দমনে কঠোর পন্থা অবলম্বন করছে পুলিশ ও সামরিক জান্তা। এখন পর্যন্ত ৫০ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। সেনাবাহিনী ‘শুট টু কিল’ নীতি হাতে নিয়েছে বলে সতর্ক করেছেন অধিকারবাদী কর্মীরা।

সোমবার সন্ধ্যায় নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা আসার আগে সংবাদমাধ্যম ‘মিয়ানমার নাও’ এর সদর দফতরে অভিযান চালায় সেনা সদস্যরা। এ সংবাদমাধ্যমটির কম্পিউটার, নিউজরুম ডাটা সার্ভার ও অন্যান্য যন্ত্রপাতি জব্দ করেছে সেনাবাহিনী।

সেনাবাহিনী অভিযান চালিয়ে এখন পর্যন্ত দেশটির ১ হাজার ৮০০ জনকে আটক করেছে, আটককৃতদের মধ্যে সাংবাদিকও আছেন বেশ কয়েকজন।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান