চীনের টিকার উৎপাদনও বাংলাদেশে

vactin

চীন ও রাশিয়ার করোনার টিকা বাংলাদেশে উৎপাদনে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে সরকার।বাংলাদেশের কয়েকটি ওষুধ কোম্পানির মাধ্যমে এ টিকা উৎপাদনে অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক সম্পর্কিত মন্ত্রিসভার কমিটি।

চুক্তির অনুযায়ী ভারত টিকা রপ্তানি করতে না পারায় ওই দুই দেশের টিকা আনার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ।একইসঙ্গে দুটি দেশের সঙ্গে যৌথভাবে বাংলাদেশে করোনার টিকা উৎপাদনের জন্য চুক্তি করে সরকার।

বুধবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে এ প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, আজকের (বুধবার) বৈঠকে এ (দেশে চীন ও রাশিয়ার টিকা উৎপাদন) সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরবর্তী সময়ে যেসব কোম্পানির সঙ্গে ওই দুটি দেশের চুক্তি হবে তারা টিকা উৎপাদন শুরু করবে। তবে আমাদের পক্ষ থেকে আজকের বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. শাহিদা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, আপাতত নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী সময়ে যখন চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে ওষুধ কোম্পানির চূড়ান্ত চুক্তি হবে তখন অর্থ ছাড়ের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হবে।রাশিয়ার স্পুটনিক-৫ এবং চীনের সিনো ভ্যাকসিন উৎপাদনের জন্য এই অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ২২ এপ্রিল রাশিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে করোনার টিকা উৎপাদনের জন্য চুক্তি সই করে বাংলাদেশ। তবে যৌথভাবে টিকা উৎপাদনের পাশাপাশি দেশটি থেকে বাণিজ্যিকভাবেও টিকা কিনবে বাংলাদেশ।