‘বিএসএফের ছোড়া ককটেলে’ বাংলাদেশিসহ দুই যুবক আহত

ফাইল ফটো

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার কাটলা সীমান্তে ভারতের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)-এর ছোড়া ককটেলে বাংলাদেশিসহ দুই যুবক আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের দক্ষিণ দাউদপুর সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- বাংলাদেশি যুবক কাজল হোসেন (২০) এবং ভারতীয় যুবক আশরাফুল ইসলাম কালু (২২)। আহত বাংলাদেশি যুবককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাজল হোসেনের বাড়ি থেকে ১৫ গজ দক্ষিণে ভারতের গোবিন্দপুর সীমান্তের বাসিন্দা রফিকুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম কালু ভারতের অভ্যন্তরে তার এক আত্মীয়কে ঈদের সেমাই ও লুঙ্গি দেয়ার জন্য ভারতের গোবিন্দপুর বলপাড়া সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়ার নিকট যায়। সেখানে বিএসএফ তাকে যেতে বাধা দেয়ায় কালু ও বিএসএফ-এর মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। পরে কালু বাড়িতে ফিরে আসে। দুপুরে বিএসএফ-এর ২০/২৫ জনের একটি দল বাংলাদেশ সীমানায় প্রবেশ করে কাজলের বাড়ির সামনে কালুকে ঘেরাও করে তাকে লক্ষ্য করে ককটেল ছুড়ে মারে এবং পরে বাড়ির দরজার দাঁড়িয়ে থাকা কাজলকে টেনেহেঁচড়ে পাশের বাঁশঝাড়ে নিয়ে ককটেল ছুড়ে আঘাত করে। পরে প্রতিবেশীরা কাজলকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে দেন।

জয়পুরহাট ২০ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ব্যাটালিয়নের অধীন দাউদপুর বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার নায়েব সুবেদার মো. আফজাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। বলেন, ‘ঘটনার পরে এ বিষয়ে দুপুর দেড়টায় ভারতের গোবিন্দপুর সীমান্তের একটি মাঠে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)-এর সাথে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর পতাকা বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে বিএসএফ কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশি যুবককে ককটেল ছুড়ে আহত করার বিষয়টি অস্বীকার করেছে।