ফিলিস্তিনিদের ওপর আবারো ইসরায়েলের হামলা

police

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানিয়েছে, ইসরায়েল যুদ্ধবিরতির পর ফিলিস্তিনিদের পশ্চিম তীরে গতকাল শুক্রবার আবারও বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছে। নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদের লক্ষ্য করে আকাশ থেকে টিয়ার শেল ছুড়ছে তেল আবিব। এতে বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন।

ইসরায়েলের অধিকৃত ভূখণ্ডে বসতি স্থাপনের প্রতিবাদে পশ্চিম তীরের বেইতা গ্রামে মিছিল বের করেন ফিলিস্তিনিরা। একপর্যায়ে তাদের বাধা দেয় নিরাপত্তা বাহিনী। জবাবে ঢিল ছুড়ে ও আগুন জ্বালিয়ে প্রতিবাদ করেন আন্দোলনরীরা।

এসময় দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে স্থলের পাশাপাশি ফিলিস্তিনিদের লক্ষ্য কোরে ড্রোনের সাহায্যে টিয়ার গ্যাস ছুড়ে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে আহত হন বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনি। তাদের নিকটস্থ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এদিকে, জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থা ইসরায়েলি সেনাদের হামলাকে যুদ্ধাপরাধ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। ফিলিস্তিনের বেইতা গ্রামে ইসরায়েলি বসতি নিয়ে সংঘর্ষকে যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে তুলনা করেছে জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার দূত মাইকেল লিংক।

এছাড়াও ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলিদের নির্বিচার হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘ। মাইকেল লিংক বলেন, ভূমি দখল করে ইসরায়েলের একের পর এক বসতি নির্মাণ পুরোপুরি অবৈধ এবং যুদ্ধাপরাধের শামিল।

তথ্য ও প্রমাণ অনুসারে, এ ধরনের কাজের জন্য ইসরায়েলকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে জবাবদিহি করতে হবে। ফিলিস্তিনিদের ওপর নির্যাতনের জন্য তাদের বড় মাশুল দিতে হবে।

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে ২০১৩ সালে এক ইহুদি নিহত হওয়ার পর অসংখ্য ইসরায়েলি সেখানে অবৈধ বসতি গড়ে তোলেন। এর আগে মধ্যপ্রাচ্য সংকট নিরসনে ১৯৬৭ সাল থেকে বেশ কয়েকটি শান্তি চুক্তির চেষ্টা করা হলেও ব্যর্থ হয় সব চেষ্টা।