টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতে ট্রাম্প

trump

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন। পাশাপাশি ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গার পর বন্ধ করে দেওয়া তার অনলাইন ভয়েস পুনরুদ্ধারেরও আবেদন করেছেন।

শুক্রবার ফ্লোরিডার একটি ফেডারেল আদালতে তিনি এই আবেদন করেন। শনিবার ভারতের সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

নির্বাচনের পরাজয়ের পর এ বছরের ৬ জানুয়ারি ট্রাম্পের উত্তেজিত সমর্থকরা ক্যাপিটল হিলে হামলা চালায়। ওই ঘটনায় ৫ জন নিহত ও বহু মানুষ আহত হন। এ ঘটনায় উসকানির জন্য ট্রাম্পকে দায়ী করা হয়।

পরে টুইটারসহ সামাজিক মাধ্যমগুলো তাদের প্লাটফর্ম থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বয়কট করে। ট্রাম্প সে সময় টুইটারে বলেন, ভোট চুরি করে জো বাইডেন আমাকে হারিয়ে দিয়েছেন।

এই বক্তব্যের পর উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে তার সমর্থকদের মধ্যে। পরে টুইটার কর্তৃপক্ষ জানায়, এমন কথা বলে ট্রাম্পের এই উত্তেজনা ছড়ানো তাদের নীতিমালার সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

ট্রাম্পের এমন বক্তব্যের কারণে ৬ জানুয়ারি ওই দাঙ্গার ঘটনা ঘটেছে এবং টুইটার তার অ্যাকাউন্ড বন্ধ করে দেয়। ফ্লোরিডার ফেডারেল আদালতে ট্রাম্প অভিযোগ দায়েরের সময় যুক্তি দিয়েছেন,

ওই প্লাটফর্মটি আমার লাখ লাখ অনুসারীদের কাছে পৌঁছানোর জন্য মেগাফোন হিসেবে কাজ করতো, কিন্তু মার্কিন কংগ্রেসের সদস্যরা সেটি সাসপেন্ড করতে বাধ্য করেছিল। ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট যখন বন্ধ করা হয় তখন টুইটারে তার ৮ কোটি ৮ লাখ অনুসারী ছিল।