১৩ হাজার পদ সৃষ্টি, স্থায়ীকরণ ও অনুমোদনের বৈঠক আজ

বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের ১২ হাজার ৮৪২ পদ সৃষ্টি ও স্থায়ীকরণ প্রস্তাব প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠকে উঠতে যাচ্ছে। এ ছাড়া ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অ্যালোকেশন অব বিজনেস সংশোধন, সিভিল সার্ভিস (পুলিশ) কম্পোজিশন অ্যান্ড ক্যাডার রুল-১৯৮০-এর তপশিল সংশোধনসহ ২১টি প্রস্তাব আলোচ্যসূচিতে রয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে জুম প্ল্যাটফর্মে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে। এটি এই অর্থবছরের তৃতীয় বৈঠক।

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অ্যালোকেশন অব বিজনেস সংশোধন প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমি এবং বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে মানবসম্পদ উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে মন্ত্রণালয়। হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা আইন-২০২১ প্রণয়নের পর এ-সংক্রান্ত বিধিমালার কাজও চলছে। সূত্র জানায়, ধর্ম মন্ত্রণালয় মানবসম্পদ উন্নয়নে অবদান রাখলেও অ্যালোকেশন অব বিজনেসে সেটা অন্তর্ভুক্ত ছিল না। এখন সেটি সংশোধন করে ‘মানবসম্পদ উন্নয়ন’-সংক্রান্ত বিষয়টি যুক্ত হচ্ছে। এতে মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রমের বড় স্বীকৃতি আসবে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অ্যালোকেশন অব বিজনেসের ৬ ও ৭ নম্বর ক্রমিক সংশোধনের প্রস্তাব করা হয়েছে। ৬ নম্বর ক্রমিকে বর্তমানে আছে ‘ধর্মীয় সংস্থা/প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং ধর্মীয় কার্যাবলী বিষয়ক সকল বিষয়’। এর পরিবর্তে সংশোধন প্রস্তাবে বলা হয়েছে ‘ধর্মীয় সংস্থা/প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং ধর্মীয় কার্যাবলী বিষয়ক সকল বিষয় এবং মানবসম্পদ উন্নয়ন’।

এ ছাড়া অ্যালোকেশন অব বিজনেসের ৭ নম্বর ক্রমিকের বিদ্যমান ‘জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতি, হজ প্রশাসন এবং তীর্থযাত্রা সংক্রান্ত বিষয়াদি’র পরিবর্তে ‘হজ ও ওমরাহ সংশ্নিষ্ট আইন বিধি-প্রবিধি নীতি এবং তীর্থযাত্রা সংক্রান্ত বিষয়াদি’।
প্রায় ১৩ হাজার পদ সৃষ্টির প্রস্তাব :স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে পদ সৃষ্টির জন্য সবচেয়ে বড় প্রস্তাব এসেছে। করোনাকালে রোগীদের জরুরি চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে দুই ধাপে ১০ হাজার সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগ দিয়েছিল সরকার। এসব পদ সৃষ্টির ভূতাপেক্ষ অনুমোদনের জন্য সচিব কমিটিতে উঠছে আজ। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ছয় হাজার ও দ্বিতীয় ধাপে চার হাজার নার্স নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল।

এ ছাড়া জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর আওতায় ২২ জেলায় ৮৮ পদ অস্থায়ীভাবে রাজস্ব খাতে সৃজন; পানি উন্নয়ন বোর্ডের ১৩ ক্যাটাগরিতে ৭৬৬ পদের অনুমোদন; ঢাকার কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের ১০ পদ সৃজন; স্থাপত্য অধিদপ্তরের ১৭ পদ সৃজন; প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে ২১ অস্থায়ী পদ, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের জন্য ১৪১ পদের ভূতাপেক্ষ ও ১৬ পদ রাজস্ব খাতে অস্থায়ীভাবে সৃজন; টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (স্র্রেডা) ১৫ পদ; শেরেবাংলা স্মৃতি জাদুঘরের জন্য অস্থায়ীভাবে হিসাব সহকারীর পদ; ১৪ সরকারি মেডিকেল কলেজের জন্য ২৮ পদ; ২৩ সরকারি মেডিকেল কলেজ, একটি ডেন্টাল কলেজ ও ৮ বিশেষায়িত ইনস্টিটিউটের মেডিসিন বিভাগের জন্য রাজস্ব খাতে স্থায়ীভাবে ১৮৩ পদ সৃজন এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাংগঠনিক কাঠামোতে রাজস্ব খাতে সৃজিত টেলিফোন প্রকৌশলীর সাত পদের নাম সংশোধন প্রস্তাব বৈঠকে উঠবে।

এর বাইরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো সরকারীকরণের আগে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীদের আত্তীকরণের লক্ষ্যে ২৮ উচ্চ বিদ্যালয়ের জন্য ৬৬৫ পদ, দুটি স্কুল অ্যান্ড কলেজের জন্য ৩৪, দুটি কলেজের জন্য ৪৯ পদসহ মোট ৭৪৮ পদ সৃষ্টির প্রস্তাব দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।
সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা যায়, করোনা শুরুর পর থেকে প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠক জুম প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর মধ্যে সরকারের কৃচ্ছ্র সাধনের বিভিন্ন আদেশ-নির্দেশ জারির পরিপ্রেক্ষিতে অনলাইনে বৈঠক অনুষ্ঠানে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠক জুম প্ল্যাটফর্মে হচ্ছে। সূত্র আরও জানায়, সরকারীকরণ করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর আগের জনবল আত্তীকরণে দীর্ঘ জটিলতা চলছিল। এ বিষয়ে সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে নির্দেশ পাওয়ার পর সম্প্রতি হওয়া সচিব কমিটির বৈঠকগুলোতে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে নিয়মিত এ-সংক্রান্ত প্রস্তাব আসছে এবং পাস হচ্ছে। এতে সারাদেশের সরকারি হওয়া নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা উপকৃত হচ্ছেন।