২০ দলীয় জোটের বিলুপ্তি, ১২ দলীয় জোটের আত্মপ্রকাশ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির সমমনা ১২ দলীয় জোটের আত্মপ্রকাশ হয়েছে। বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের বিলুপ্তির পর ওই জোটেরই ১২টি দলকে নিয়ে এই জোট গঠন করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ জোটের আত্মপ্রকাশ ঘটে।

১২ দলীয় এই জোটে রয়েছে- মোস্তফা জামাল হায়দারের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি (জাফর), মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীকের নেতৃত্বে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের নেতৃত্বে বাংলাদেশ লেবার পার্টি, সৈয়দ এহসানুল হুদার নেতৃত্বে বাংলাদেশ জাতীয় দল, কেএম আবু তাহেরের নেতৃত্বে এনডিপি, শাহাদাত হোসেন সেলিমের নেতৃত্বে বিএলডিপি, অ্যাডভোকেট জুলফিকার বুলবুল চৌধুরীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, মুফতি মহিউদ্দিন ইকরামের নেতৃত্বে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, মাওলানা আবদুর রকীবের নেতৃত্বে ইসলামী ঐক্যজোট, নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে বাংলাদেশ সাম্যবাদী দল, অ্যাডভোকেট আবুল কাসেমের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টি এবং ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধানের নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা, একাংশ)।

জোটের একাধিক নেতা জানান, বিএনপির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলন বেগবান করতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে এই ১২টি রাজনৈতিক দল।

এদিকে, ২০ দলের শরিকদের আরেক অংশ আগামী সপ্তাহে ‘৭ দলীয় জোট’ নামে নতুন আরেকটি জোট আত্মপ্রকাশ করবে।

জানা গেছে, ৭ দলীয় জোটে থাকছে ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি), অ্যাডভোকেট মাওলানা আবদুর রকীবের নেতৃত্বাধীন ইসলামী ঐক্যজোট, খন্দকার লুৎফর রহমানের নেতৃত্বাধীন জাগপার-একাংশ, সাদেক শাওনের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ ন্যাপ, অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলামের নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ ভাসানী), সাইফুদ্দীন মনির নেতৃত্বাধীন ডেমোক্রেটিক লীগ (ডিএল) ও অ্যাডভোকেট গরীবে নেওয়াজের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ পিপলস লীগ।