যশোরের বাঘারপাড়ায় দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ৬

যশোরে গ্রামের ভিতরে রাস্তাদিয়ে যাওয়া আসা কে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপে মধ্যে সংঘর্ষ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।
যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার দরাজহাট ইউনিয়নের বুধপুর গ্রামে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও অগ্নিসংযোগের এই ঘটনা ঘটে। এতে উভয় গ্রুপের ৬ জন রক্তাক্ত জমা হয়।
আহতদের বাঘারপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হযেছে।এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,বুধপুর গ্রামেরএজাহার মোল্লার পুত্র মোঃ ইখলাজ হোসেন বাড়ির পাশে পুকুর মাটি ভরাট করছে।ঐরাস্তার পাশে একটি মেহগ্নী গাছ থাকায় ইখলাজ হোসেন স্থানীয় নিকমাল মোল্লাকে গালিগালাজ করতে থাকে।
একপর্যায়ে শুরু হয় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া।
নিকমল হোসেনের লোকজন আকরাম হোসেন, সবুজ হোসেন, মুস্তাক,সোহাগ, ইমাম হোসেন,সহ ১০/১২ জন ব্যক্তি ইকলাজ হোসেনকে মাথায় আঘাত করে। এসময় বধূপুর গ্রামের আকাম মোল্লার পুত্র জিন্নাত (৪০) ও ইসমাইল মোল্লার পাত্র আসিফ হাসান গুরুতর যখন হয়। আহত ইকলাজ হোসেন দাবি করেন। নিকমল মোল্লার নেতৃত্বে উল্লেখিত ব্যক্তিরা তার ওপর হামলা চালায় এবং তার বসত বাড়ী ভাঙচুর করা সহ রান্না ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়।
এই ঘটনায় উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তোলেন।স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ রিপন হোসেন জানান সংঘর্ষের সময় আমি নিজেই উপস্থিত থেকে মিমাংসার চেঘ্টা করছিলাম। ইখলাজ হোসেন একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। প্রায় সময় সে মাদকাসত্ত অবস্থায় এলাকার মুরুব্বীদের গালিগালাজ করতে থাকে। এলাকার ভিতরে মাদকের ব্যবসা করতে না দেওয়াই সে স্থানীয় মুরুব্বীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে।
ইমাম হোসেনের( মা) রাশিদা বেগম জানান ইখলাস হোসেন নিজেই তার রান্না ঘরে আগুন ধরিয়েছে।
এই ঘটনা উভয় পক্ষের মধ্যে মামলার প্রস্তুতি চলছে।