বাঘারপাড়ায় নৌকা ও আনারসের ৫৬ কর্মীর নামে পাল্টাপাল্টি মামলা

jashore map

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে রোববার (২৯ নভেম্বর) রাতে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। বাসুয়াড়ি ইউনিয়নের আলাদিপুর বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের দুজন আহত হয়। মামলায় নৌকা প্রতীকের ১৯ ও আনারসের ৩৭ কর্মীকে আসামী করা হয়েছে।

সোমবার (৩০ নভেম্বর) নৌকা প্রতিকের পক্ষে ওলিয়ার রহমান ও আনারস প্রতিকের পক্ষে জাহিদ সরদার বাদী হয়ে বাঘারপাড়া থানায় এ মামলা করেন।

নৌকা প্রতীকের যেসব কর্মীদের আসামী করা হয়েছে তারা হলেন, উপজেলার বারভাগ গ্রামের সুলতান শেখের ছেলে হিরক, একই গ্রামের মৃত মোনসের শেখের ছেলে জাহিদ ও অলিয়ার রহমান, অলিয়ার রহমানের ছেলে সোহান, আব্দুর রহিমের ছেলে নয়ন, সুলতান শেখের ছেলে সাহাবুদ্দিন, রহমানের ছেলে রাজু, ওসমান ফকিরের ছেলে ইমরান, ইমরানের ছেলে সুমন, আজিজ গাজীর ছেলে মাহাবুর গাজী, মাহাবুর গাজীর ছেলে মামুন, বারেক মিস্ত্রির ছেলে জাকের ও জাকেরের ছেলে রায়হান, নিত্যানন্দপুর গ্রামের ফিদিল্লাহ মোল্যার ছেলে ফজলুর রহমান, একই গ্রামের উজ্জল হোসেনের ছেলে সাগর, খয়বার মাস্টারের ছেলে বিপুল হোসেন ও টুটুল, আলাদিপুর গ্রামের মৃত মাহাতাব খাঁর ছেলে আকতার ও জয়রামপুর গ্রামের মান্নান সরদারের ছেলে ইকরামুলসহ অজ্ঞাতনামা ৩০/৪০জন।

আনারস প্রতীকের যেসব কর্মীদের আসামী করা হয়েছে তারা হলেন, আলাদিপুর গ্রামের সাম সর্দারের ছেলে জাহিদ সর্দার ও শহিদ, জাহিদ সর্দারের ছেলে বাপ্পা, মিজানুর রহমান কাজীর ছেলে ইকবাল, বারভাগ গ্রামের মিয়াজানের ছেলে সাহেব আলী, জাফর আলীর ছেলে সুজন, নিত্যানন্দপুর গ্রামের রজব আলীর ছেলে হালিম, ইনছার আলীর ছেলে শফিকুল, জয়রামপুর গ্রামের মোতালেব সর্দারের ছেলে অপু, রাধানগর গ্রামের আবু তালেবের ছেলে বিল্লাল, আজিবারের ছেলে হিরক আলী, মতিয়ার রহমানের ছেলে জাহিদুল, ইসমাইল ধাবকের ছেলে শাহজাহান ধাবক, বাররা গ্রামের হাসেন সর্দারের ছেলে আজাহার, লিয়াকত আলীর ছেলে রফিক, জয়রামপুর গ্রামের হাজের মোল্যার ছেলে শাহিন মোল্যা, বারভাগ গ্রামের ছলেমান সর্দারের ছেলে আতিক সর্দার, মীরপুর গ্রামের মৃত আজিম মুন্সীর ছেলে মুন্সী বাহারউদ্দীন, দোহাকুলা গ্রামের মোমেন মোল্যার ছেলে শামছুর রহমান, হলদা গ্রামের উজির খালাসীর ছেলে শরিফুল, বেতালপাড়া গ্রামের শামছুর রহমানের ছেলে রবিউল, ছুরমানের ছেলে মনিুরুল, বোবা কাদেরের ছেলে রাজীব, একই গ্রামের হারুন, হিংগারপাড়া গ্রামের উত্তম শিকদারের ছেলে কৌশিক শিকদার ও মোকাম বিশ্বাসের ছেলে মিজানুর, হলিহুট্ট গ্রামের নাজমুল হুদার ছেলে মাসুদুর রহমান, তাহের আলীর ছেলে রশিদ ও বাহের আলীর ছেলে জসিম, জহুরপুর গ্রামের আলী হায়দার টফির ছেলে হৃদয়, অসিত সরকারের ছেলে নান্টু সরকার, দিলীপ খন্দকারের ছেলে খন্দকার কামাল, অলিয়ার খন্দকারের ছেলে সেলিম খন্দকার ও জোতিন বিশ্বাসের ছেলে উত্তম বিশ্বাস, মাঝিয়ালী গ্রামের আমিন বিশ্বাসের ছেলে সেলিম বিশ্বাস, উত্তর চাঁদপুর গ্রামের ছরোয়ার লস্কারের ছেলে শিপন লস্কার, হলদা গ্রামের মিন্টু মন্ডলের ছেলে মুন্নাসহ অজ্ঞাতনামা ২০/৩০ জন

বাঘারপাড়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আল মামুন জানান, নৌকা ও আনারসের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ৫৬ কর্মীর নামে মামলা হয়েছে। ইতিমধ্যে উভয় পক্ষের ৯ জন আসামীকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, নির্বাচনে সব ধরণের সহিংসতারোধে প্রশাসন শক্ত অবস্থানে রয়েছে। উপজেলা জুড়ে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবও কাজ করছে। আচরণ বিধি লঙ্ঘন করলে সাথে সাথেই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ায় পদটি শূন্য হয়। আগামী ১০ ডিসেম্বর এই পদে উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে প্রয়াত চেয়ারম্যানের স্ত্রী নৌকা প্রতিকের ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী, ধানের শীষ প্রতিকে শামছুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতিকে দীন মোহাম্মদ দীলু পাটোয়ারী লড়বেন।