মার্কিন পণ্যে কানাডার শাস্তিমূলক শুল্ক আরোপের ঘোষণা

canada

আমেরিকান পণ্যের ওপর ৩.৬ বিলিয়ন ডলার শাস্তিমূলক শুল্ক আরোপের ঘোষণা দিয়েছে কানাডা।

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ৩০ দিন আলোচনার পর কোন কোন পণ্যের উপর শুল্ক আরোপ করা হবে তার ঘোষণা দেয়া হবে।

উপপ্রধানমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড স্থানীয় সময় শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে ওই ঘোষণা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কানাডা থেকে আমেরিকায় আমদানি করা অ্যালুমিনিয়ামের ওপর ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপের ঘোষণার পর কানাডা ওই ঘোষনা দিলো।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওহিওর একটি নির্বাচনী সভায় কানাডা থেকে আমদানি করা অ্যালুমিনিয়ামের ওপর ১০ শতাংশ হারে শুল্ক আরোপের ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, মার্কিন নিরাপত্তা নিশ্চিত করার স্বার্থেই তিনি এই পদক্ষেপ নেবেন। ডোনাল্ড ট্রাম্পের এই ঘোষণা প্রচারিত হওয়ার পরপরই অটোয়ায় এর তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এবং উপ প্রধানমন্ত্রী ক্রিষ্টিয়া ফ্রিল্যান্ড সঙ্গে সঙ্গে পাল্টা পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে ঘোষণা দেন।

ক্রিষ্টিয়া ফ্রিল্যান্ড বলেন, যুক্তরাষ্ট্র কানাডার কোনো পণ্যের ওপর প্রতিবন্ধকতামূলক পদক্ষেপ নিলে কানাডাও মার্কিন পণ্যের উপর পাল্টা ব্যবস্থা নেবে।

ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য নাকচ করে দিয়ে বলেন, কানাডার অ্যালুমিনিয়াম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তার কোনো ব্যত্যয় ঘটায়নি। বরং আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেন, সরকার অতীতের মতোই কানাডার অ্যালুমিনিয়াম খাতের উদ্যোক্তা এবং শ্রমিকদের পাশে দাড়াবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে আমেরিকা অ্যালুমিনিয়ামের ওপর ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করেছিলো। কানাডার তুমুল প্রতিবাদের পর সেটি তখন স্থগিত রাখা হয়।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের প্রদুর্ভাবের পর থেকে কানাডা-আমেরিকার সীমান্ত বন্ধ রয়েছে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত আগামী একুশে আগস্ট পর্যন্ত তা বন্ধ থাকবে।