বাইডেনের নির্দেশে সিরিয়ায় বিমান হামলা যুক্তরাষ্ট্রের

jo bide

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশে পশ্চিম সিরিয়ার ইরান সমর্থিত একটি সামরিক স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী। একজন বেসামরিক ঠিকাদারকে হত্যা এবং মার্কিন কর্মকর্তাদের ওপর সাম্প্রতিক সময়ে রকেট হামলা হওয়ার জবাবে এই আক্রমণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন। সিরিয়ার সামরিক স্থাপনাটি ইরানের মদদপুষ্ট দুই গোষ্ঠী ব্যবহার করত বলে জানা গেছে।

মার্কিন মুখপাত্র জন কিরবি জানান, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের নির্দেশে যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এই হামলা চালায়।

পেন্টাগন মুখপাত্র আরও বলেন, ‘হামলার শিকার হওয়া স্থাপনাটি মূলত ‘কায়তিব হিজবুল্লাহ’ও ‘কায়তিব সাইদ আলসুহাদা’ মিলিশিয়া গোষ্ঠী অস্ত্র ছিনতাই অভিযানের জন্য ব্যবহার করত। এসব মিলিশিয়া গোষ্ঠীর হামলা সক্ষমতা কমাতে পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।’

এএফপির সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটসের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মার্কিন ওই হামলায় ১৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

দুই সপ্তাহ আগে ‘এরবিল’এয়ারপোর্টের ভেতরে যুক্তরাষ্ট্রের একটি মিলিটারি বেশে হামলায় বিদেশি এক ঠিকাদারের মৃত্যু হয়। এই হামলায় আরও নয়জন আহত হন এবং হামলায় রকেট ব্যবহার করা হয়েছিল।

কিরবি আরও জানান, একটি বর্ডার কন্ট্রোল পয়েন্টে চালানো হামলায় কাতাইব হিজবুল্লাহ, কাতাইব সাইয়্যিদ আল সুহাদার (কেএসএস) মতো ইরান সমর্থিত জঙ্গিগোষ্ঠীর বিভিন্ন স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।

২০১৪ সাল থেকে আইএস ও আইএসআইএলের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যেতে বিদেশি সেনাদল মোতায়েন করা হয়। স্বল্প পরিচিত শিয়া জঙ্গিগোষ্ঠী সারায়া আওলিয়া আল দাম ১৫ ফেব্রুয়ারির সেই হামলার দায় স্বীকার করেছে। এরই এক সপ্তাহ পর বাগদাদে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাম্বাসিতে হামলা চালানো হয়।