যশোরে বিপুল পরিমাণ আইসক্রিম জব্দ, জরিমানা আদায়

icecrem

যশোরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার তদারকি অভিযানে ৬ প্রতিষ্ঠানে এক লাখ ৪৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় ৯৮ কার্টন ললি ও পেপসি আইসক্রিম জব্দ ও ধ্বংস করা হয়েছে। যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ টাকা।

রোববার যশোর শহরের বড়বাজার ও সদর উপজেলার রুপদিয়া বাজারে অভিযানে নেতৃত্ব দেন ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর যশোরের সহকারী পরিচালক ওয়ালিদ বিন হাবিব।

জরিমানা করা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- উৎপাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ বিহীন, বিএসটিআই অনুমোদন ছাড়া ললি ও পেপসি আইসক্রিম বিক্রি করায় শহরের বড়বাজারের জয়নাল স্টোরকে ২০ হাজার টাকা, অশোক স্টোরকে দুই হাজার টাকা, মনসা ভান্ডারকে ৪০ হাজার টাকা, সমীর স্টোরকে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় ৯৮ কার্টন আইসক্রিম জব্দ ও ধ্বংস করা হয়েছে। যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ টাকা।
অপরদিকে, সদর উপজেলার রূপদিয়া বাজারে মেয়াদোত্তীর্ণ মসলা ও ট্যালকম পাউডার বিক্রি, মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় দে স্টোরকে দুই হাজার টাকা ও মোস্তাক স্টোরকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যশোরের সহকারী পরিচালক ওয়ালিদ বিন হাবিব জানান, ভোক্তা-অধিকার আইন, ২০০৯ অনুযায়ী প্রশাসনিক ব্যবস্থায় শহরের বড়বাজার ও রুপদিয়ায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা আদায় ও পণ্য জব্দ করা হয়েছে। পাশাপাশি দোকানে হালনাগাদ মূল্য তালিকা প্রদর্শন, ন্যায্য ও যৌক্তিক মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রয় করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ব্যবসায়ী ও জনসাধারণকে মাস্ক ব্যবহার ও দূরত্ব বজায় রেখে ক্রয়-বিক্রয় করার আহ্বান জানানো হয়।

অভিযানে সহযোগিতা করেন যশোর সদর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক তুষার কান্তি মন্ডল, ক্যাব যশোরের সদস্য আবদুর রকিব সরদার অপু প্রমুখ।