ভারতে আটক পুলিশ কর্মকর্তা সোহেলকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে

Commisoner

ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ই-অরেঞ্জের পৃষ্ঠপোষক বনানী থানার পরিদর্শক সোহেল রানাকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

রোববার ৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে সাড়ে ১২টার দিকে ডিএমপি কমিশনার গণমাধ্যমকে একথা বলেন তিনি।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে ভারতে পরিদর্শক সোহেল রানার বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে, যে কারণে তাকে ফিরিয়ে আনা যাবে কি-না সেটি নিশ্চিত নয়।

তবে ফিরিয়ে আনার রাস্তা রয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বিএসএফকে চিঠি দিয়ে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। এটি অনেক সময় করা হয়। আমরা চেষ্টা করছি, ফিরিয়ে আনার জন্য।

যদি এ মাধ্যমে ফিরিয়ে আনা সম্ভব না হয়, তাহলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে তাকে ফেরত আনার চেষ্টা করা হবে। তিনি আরও বলেন, তার ব্যাপারে গুলশান বিভাগ পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে,

রিপোর্ট পেলে শাস্তির আওতায় আনা হবে। শনিবার ভারতীয় একটি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের অভিযোগে শুক্রবার কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা সীমান্ত থেকে সোহেল রানা নামে এক বাংলাদেশিকে আটক করেছে বিএসএফ।

পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় একাধিক চাঞ্চল্যকর তথ্য দেন তিনি। আটক সোহেল রানা গ্রাহকের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎকারী বহুল আলোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের পৃষ্ঠপোষক।

তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে কর্মরত ছিলেন। বনানী থানার এই পুলিশ পরিদর্শকের বোন ও ভগ্নিপতি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ‘ই-অরেঞ্জ’ পরিচালনা করতেন।