যশোরে আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হয়েছে তিন দিনের ইস্তেমা

jessore istama news

আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে যশোরে শেষ হয়েছে তিন দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা। শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় যশোর উপশহর কেন্দ্রীয় উদ্যানে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয় জোড় ইস্তেমা।

আখেরি মোনাজাতে বিশ্বের মুসলিম উম্মার সুখ, শান্তি, কল্যাণ, অগ্রগতি, ভ্রাতৃত্ববোধ, ক্ষমা প্রার্থনা ও মঙ্গল কামনা করা হয়। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসার মুরুব্বি মাওলানা আব্দুর রহমান। এতে প্রায় দুই লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান শরিক হন।

যশোর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ, পুলিশ সুপার মঈনুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার, পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদারসহ সকল স্তরের মানুষ এই আখেরি মোনাজাতে অংশ নেন।

৫ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয় তিনের জোড় ইস্তেমা। যশোরের উপশহর ক্রীড়া উদ্যান, উপশহর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ, বাদশাহ ফয়সাল স্কুল মাঠ, শাপলা কিন্ডার গার্টেন মাঠ, আর্ট কলেজ মাঠ, উপশহর পার্কের মাঠ, বিরামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠ এবং উপশহর ডিগ্রী কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয় এই জোড় ইস্তেমা। এতে দুটি দেশ এবং দেশের ২০টি জেলার মুসল্লিরা অংশ নেন।

ইজতেমা আয়োজন কমিটির প্রধান মাওলানা নাসীরল্লাহ বলেন, খুলনা বিভাগের দশ জেলা, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, শরিয়তপুর, রাজশাহী, চাপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, নাটোর ও পাবনা জেলা থেকে মুরব্বিরা ইস্তেমায় অংশ গ্রহণ করেন। এর মধ্যে ভারত ও পাকিস্থান থেকে ১২ জন মেহমান ইস্তেমায় আসেন। আখেরি মোনাজাতে প্রায় দুই লাখ মানুষ অংশ নিয়েছেন।

তিনি বলেন, তবলিগের পুরানো সাথী যারা ইতোমধ্যে তিন চিল্লা সম্পন্ন করেছেন-সেইসব মেহমানরাও ইস্তেমায় আসেন।