যশোরে গৃহবধূর ছবি ইন্টারনেটে দেওয়ার কথা বলে চাঁদাদাবি

jashore map

এক গৃহবধূর সাথে প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে ছবি তুলে ছবি ইন্টারনেটে দেওয়ার কথা বলে ২লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে বিভিন্ন সময় ৬০ হাজার টাকা আদায় পূর্বক বাকী টাকার জন্য প্রাণনাশের হুমকীর অভিযোগে মামলা হয়েছে।

মামলায় আসামী করা হয়েছে ৪ জনকে। আসামীরা হচ্ছে, যশোর শহরের শংকরপুর পশু হাসপাতালের পাশের্ কাজী তৌহিদুল ইসলামের ছেলে রাকিব ওরফে ভাইপো রাকিব, চাঁচড়া রায়পাড়ার তৈয়ব আলীর ছেলে সাব্বির, খালদার রোড নাথপাড়ার নিমাই নাথের ছেলে নয়ন সাহা ও শংকরপুর গোলপাতা মসজিদের কাঠ হারুনের ছেলে মামুন ওরফে ল্যাটা মামুন ওরফে ভাগ্নে মামুনসহ অজ্ঞাতনামা ৩/৪জন।

যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া ভোলা কলোনীর রাশেদুল ইসলামের স্ত্রী শারমিন আক্তার বুলবুলি হাওলাদার বাদী হয়ে মামলায় বলেছেন, রাকিব ওরফে ভাইপো রাকিবের সাথে মোবাইল ও ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে যোগাযোগের সূত্র ধরে পরিচয়। পরিচয়ের এক পর্যায় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের এক পর্যায় না বলে মোবাইলে ছবি তোলে। পরবর্তীতে উক্ত ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে ২ লাখ টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকী দেওয়ায় বিভিন্ন সময় ৫/৬ কিস্তিতে নগদ ৬০ হাজার টাকা প্রদান করে। বাকী ১ লাখ ৪০ হাজার টাকার জন্য হুমকী দেয়।

গত ৩০ ডিসেম্বর বুধবার রাত সোয়া ৮ টায় শংকরপুর পশু হাসপাতালের পাশের্ হাউজিং মাঠে শারমিন আক্তার বুলবুলি হাওলাদার ও তার ভাইবোন এবং প্রতিবেশী গেলে বাকী টাকা চায়। ছবি ফেরত দিতে বললে বাকী টাকা চেয়ে প্রাণনাশের হুমকী দেয়।