ফের কুয়েত-বাংলাদেশ সরাসরি ফ্লাইট চালুর ঘোষণা

biman air flying

বাংলাদেশসহ ছয়টি দেশের সাথে সরাসরি বাণিজ্যিক ফ্লাইট পুনরায় চালু করার অনুমোদন দিয়েছে কুয়েত। বুধবার কুয়েতের মন্ত্রী পরিষদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে আরব টাইমস খবরে জানানো হয়েছে।

এর আগে করোনা ভাইরাসের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকায় বাংলাদেশসহ ছয়টি দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, মিসর, নেপালের সাথে সরাসরি বাণিজ্যিক ফ্লাইট বন্ধ রাখে কুয়েত।

এই বিষয়ে কুয়েতের বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সির কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, স্থানীয় গণমাধ্যমে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের খবর তারা দেখেছেন।

তবে বেসামরিক বিমান চলাচল অধিদপ্তর থেকে কোন দিক নির্দেশনা না পেলে তারা সঠিক করে কিছু বলতে পারবেন না। বৃহস্পতিবার দুপর পর্যন্ত ট্রাভেল এজেন্সিগুলো বেসামরিক বিমান চলাচল অধিদপ্তর থেকে কোন নির্দেশনা পায়নি বলে জানা গেছে।

ট্রাভেল এজেন্সির সাথে সংশ্লিষ্টরা সমকালকে জানান, এবার ফ্লাইট খোলা হবে, তবে হয়ত কিছু দিকনির্দেশনা থাকতে পারে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে রোববার থেকে ছয়টি দেশের সাথে ফ্লাইট চালুর কথা উল্লেখ করা হয়েছে ।

এদিকে, এয়ারলাইন্সগুলির অনুরোধের ভিত্তিতে ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্তসহ ফ্লাইটের ধারণক্ষমতা অনুযায়ী প্রতি ফ্লাইটে আসন সংখ্যা উল্লেখ করার ইঙ্গিত রয়েছে।

এর মধ্যে কুয়েতের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আগত যাত্রীর সংখ্যা সাড়ে ৭ হাজারে উন্নীত করা হয়েছে। দেশটির বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আগের মতো স্বাস্থ্য প্রয়োজনীয়তা পূরণ করে কুয়েত সরকার অনুমোদিত টিকা ফাইজার, অক্সফোর্ড ও মডার্নার দুই ডোজ অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের এক ডোজ টিকা

এবং কুয়েতে প্রবেশের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর সনদ ও কুয়েতে এসে নিজ বাসায় ৭ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার বিষয়ে কিছু উল্লেখ না করলেও করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে কিছু দিকনির্দেশনা থাকবে বলে অনেকে মনে ধারণা করছেন।

এর আগে মন্ত্রীপরিষদের বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছিল, কুয়েতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ কমতে থাকায় জুনের মাঝামাঝি সময়ে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে পহেলা আগস্ট থেকে কুয়েতে ফিরতে পারবেন প্রবাসীরা। কিন্তু করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বাড়তে থাকলে হঠাৎ করে এই ছয়টি দেশের উপর পুনরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল দেশটি।