চীনাদের কম কম খাওয়ার নির্দেশ শি’র

Xi Jinping president of china

চীনে অধিবাসীদের কম কম খাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এছাড়া কোনোভাবেই খাবার নষ্ট না করার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

চলমান ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি ও করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে খাদ্য সরবরাহের সংকটের মধ্যে সম্প্রতি এই নির্দেশনা দেন চীনা প্রেসিডেন্ট।

চীনে যে পরিমাণ খাবার নষ্ট করা হয় সেটাকে তিনি ‘বেদনাদায়ক ও কষ্টদায়ক’ বলে অভিহিত করেছেন। এ ব্যাপারে বেশ কিছু কার্যকরী পদক্ষেপও নিয়েছে দেশটির সরকার। খাদ্য অপচয় রোধে ‘ক্লিন প্লেট ক্যাম্পেইন’ নামে একটি প্রচারণা কর্মসূচিও শুরু হয়েছে। খবর এএফপি ও সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের।

করোনামহামারীর মধ্যেই সম্প্রতি চীনের দক্ষিণাঞ্চলজুড়ে ব্যাপক বন্যা হয়েছে। এতে বিপুল কৃষি খামার ভেসে গেছে। নষ্ট হয়েছে হাজার হাজার টন খাদ্যশস্য। দেশ খাবার সংকটের মুখে পড়তে যাচ্ছে বলে বিভিন্ন সতর্কবার্তা শোনা যাচ্ছে। তবে চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস সেগুলোকে ‘মিডিয়া হাইপ’ বলে খাটো করতে চাচ্ছে।

এর মধ্যেই বিপুল পরিমাণ খাবার খাওয়ার দৃশ্য সরাসরি সম্প্রচার করা কয়েকজনের কড়া সমালোচনা করেছে দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন।

এরই ধারাবাহিকতায় প্রেসিডেন্ট জিনপিং এক ঘোষণায় বলেন, খাদ্য নিরাপত্তার সংকট নিয়ে চীনের নাগরিকদের অনুভূতিপরায়ণ হতে হবে। বিশ্লেষকরা বলছেন, খাদ্য অপচয় কমিয়ে আনলে খাদ্য নিরাপত্তা বৃদ্ধি পাবে।

সেই সঙ্গে করোনার মধ্যে খাদ্য আমদানি ঘাটতি ও সরবরাহ সংকট মোকাবেলায় দেশের সক্ষমতা শক্তিশালী হবে।

সরকারের পক্ষ থেকে উহানের ক্যাটারিং ইন্ড্রাস্টি অ্যাসোসিয়েশন শহরের রেস্টুরেন্টগুলোকে খাবার সরবরাহ সীমিত করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বলা হয়েছে, কোনো গ্রুপে যত মানুষ খাবারের অর্ডার দেবে তার চেয়ে অন্তত এক পদের খাবার কম সরবরাহ করতে হবে। এই নিয়মের নাম দেয়া হয়েছে ‘এন-১’।

যেখানে ভোজনকারীদের সংখ্যা দশজন হলে খাবার অর্ডার করতে পারবে নয়টি। তবে এই ব্যবস্থাটির সঙ্গে মানিয়ে নেয়া কষ্টকর হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।